(HTML) এইচটিএমএল এর ইতিহাস, (HTML) এইচটিএমএল কি? কেন শিখবেন? [HTMLp1-বাংলা এইচটিএমএল টিউটোরিয়াল]

আসসালামু আলাইকুম.. আপনাদের অনেক অনেক শুভেচ্ছা! আজকে থেকে আমরা এইচটিএমএল এর কোর্স করব!!
আমি প্রায় সব ধরনের প্রোগ্রামিং ল্যাংগুয়েজ আপনাদের শেখাতে চাই, যেমনঃ এইচটিএমএল, সিএসএস, পিএইচপি, পাইথন, মাইএসকিউএল, জাভাস্ক্রিপ্ট, বুটস্ট্রাপ ইত্যাদি ইত্যাদি। এসকল ল্যাঙ্গুয়েজে প্রধান অর্থাৎ আবশ্যক বিষয় হচ্ছে এইচটিএমএল এবং সিএসএস।

আপনি যদি এইচটিএমএল এবং সিএসএস না জানেন তাহলে হাজার হাজার ল্যাঙ্গুয়েজ শিখে ও কোন কাজ করতে পারবেন না।

তো আমিও পন্ডিত না! আমি যেটুকু জানি শুধুমাত্র সেটুকু আপনাদের জানানোর চেষ্টা করব। আমি সবগুলো ল্যাঙ্গুয়েজ ভালোভাবে জানি না। তো আপনাদের শেখাতে শেখাতে আমিও সবকিছু ভালো মতন শিখে যাব! তো এটা আমাদের সবার জন্য একটা ভালো হতে যাচ্ছে।

আর আপনারা জানেন যে এসব প্রোগ্রামিং ল্যাঙ্গুয়েজ এর কোর্স প্রায় সব সময় ওই পেইড হয়ে থাকে, অর্থাৎ ফ্রিতে আপনাকে কেউ শেখাবে না টাকা দিয়ে শিখতে হয়। আর যে সকল টিউটোরিয়াল পাবেন সেগুলো প্রায় সবগুলোই ইংরেজিতে লেখা তাই আমাদের মধ্যে যারা ইংরেজিতে দক্ষ নয় তারা সেগুলো সহজে বুঝে না।
তাই আমি এই উদ্যোগটা নিয়েছি সবাইকে শেখানোর জন্য। আপনারা আমার পাশে থাকলে নিয়মিত দু-একটি টিউটোরিয়াল পাবলিশ করব ইনশাআল্লাহ।

তো আজকে যেহেতু আমরা এইচটিএমএল ল্যাঙ্গুয়েজ শিখব তার আগে আমাদের এইচটিএমএল এর পরিচিতি জানতে হবে। এইচটিএমএল কি কিভাবে এলো এসব যদি আমরা না জানি তাহলে প্রোগ্রামিং শিখে লাভ কি, তাইনা! তো চলুন এইচটিএমএল সম্পর্কে জেনে নিই..


হাইপারটেক্সট মার্কআপ ল্যাঙ্গুয়েজ
(এইচটিএমএল) ইংরেজি তে HTML হলো ওয়েব ব্রাউজারে প্রদর্শিত নকশাগুলির জন্য স্ট্যান্ডার্ড মার্কআপ ল্যাঙ্গুয়েজ। এটি ক্যাসকেডিং স্টাইল শীট (সিএসএস/CSS) এবং জাভাস্ক্রিপ্টের (JavaScript) মতো স্ক্রিপ্টিং অন্যান্য সকল ভাষাগুলির সাথে কাজ করতে পারে।

HTML5 এর অফিসিয়াল লোগো
এইচটিএমএল
(হাইপারটেক্সট মার্কআপ ল্যাঙ্গুয়েজ)

সাধারণত তথ্যঃ
ফাইলের নাম (এক্সটেনশন): .html
.htm
ইন্টারনেট মিডিয়া টাইপঃ text/html
আবিষ্কারকঃ WHATW
প্রাথমিক প্রকাশঃ 1993, প্রায় 26 বছর আগে।
তৈরিকৃতঃ এসজিএমএল (sgml) থেকে
প্রসারিতঃ এক্সএইচটিএমএল (xhtml) পর্যন্ত
অফিসিয়াল ওয়েবসাইটঃ whatwg.org

এইচটিএমএল হল একটি মার্কআপ ল্যাঙ্গুয়েজ যা ওয়েব ব্রাউজারগুলি ভিজ্যুয়াল পেজ গুলো তে পাঠ্য, চিত্র এবং অন্যান্য উপাদান ব্যাখ্যা এবং রচনা করতে ব্যবহার করে। এইচটিএমএল মার্কআপের প্রতিটি আইটেমের জন্য ডিফল্ট বৈশিষ্ট্যগুলি ব্রাউজারে সংজ্ঞায়িত করা হয় এবং এই বৈশিষ্ট্যগুলি সিএসএসের মাধ্যমে আরও সুন্দর ভাবে উপস্থাপন করা যায়।
ওয়েব ব্রাউজারগুলি কোনও ওয়েব সার্ভার বা লোকালহোস্ট থেকে এইচটিএমএল ডকুমেটারি গ্রহণ করে এবং সেগুলো মাল্টিমিডিয়া ওয়েব পেজ গুলো তে প্রদর্শন করে থাকে।
এইচটিএমএল একটি ওয়েব পেজের কাঠামো শব্দার্থগতভাবে বর্ণনা করে এবং ডকুমেন্ট এ উপস্থিত সংকেতকে বর্ণনা করে।

এইচটিএমএল কনস্ট্রাক্টস, চিত্র এবং অন্যান্য বস্তু যেমন ইন্টারেক্টিভ বিভিন্ন ফর্ম ও ওয়েবসাইটের পেজ এ এম্বেড করে প্রদর্শন করা যায়। এইচটিএমএল শিরোনাম, অনুচ্ছেদ, তালিকা, লিঙ্ক, উদ্ধৃতি এবং অন্যান্য আইটেম গুলোকে এইচটিএমএল ফাইল থেকে সংগ্রহ করে এবং ওয়েব পেজ এ সেটাকে প্রদর্শন করায় ।

এইচটিএমএল এট্রিবিউট গুলো ট্যাগ বন্ধনী ব্যবহার করে ট্যাগ দ্বারা বর্ণিত হয়। ট্যাগ যেমনঃ
[HTML]

[/HTML]

ইত্যাদি ইত্যাদি ট্যাগ কোড গুলো ব্যবহার করে আপনি ইন্টারঅ্যাকটিভ কনটেন্ট আপনার ওয়েব পেজে প্রদর্শন করাতে পারবেন। এইগুলো সম্পর্কে আমরা পরবর্তী পোস্টে জানব।

ব্রাউজারগুলি এইচটিএমএল ট্যাগগুলি প্রদর্শন করে না, তবে পেজ এর সামগ্রীটি ব্যাখ্যা করতে সেগুলি ব্যবহার করে।

এইচটিএমএল জাভাস্ক্রিপ্টের মতো স্ক্রিপ্টিং ভাষায় লিখিত প্রোগ্রামগুলি এম্বেড করতে পারে যা ওয়েব পেজ গুলোর আচরণ এবং বিভিন্ন উপাদান কে প্রভাবিত করে। পেজ গুলোর অন্তর্ভুক্তি সামগ্রীর আচরণ এবং বিন্যাসকে সংজ্ঞায়িত করে।

ইতিহাস:
ওয়ার্ল্ড ওয়াইড ওয়েব কনসোর্টিয়াম (w3c), এইচটিএমএলের প্রাক্তন রক্ষণাবেক্ষণকারী এবং সিএসএস এর বর্তমান রক্ষণাবেক্ষণকারী।

1980 সালে, সিইআরএন-এর ঠিকাদার, পদার্থবিজ্ঞানী টিম বার্নার্স-লি প্রস্তাবিত ও সিইআরএন গবেষকদের ডকুমেন্ট ব্যবহার ও ভাগ করে নেওয়ার জন্য একটি সিস্টেম প্রস্তাব করেছিলেন।
1989 সালে, বার্নার্স-লি একটি ইন্টারনেট-ভিত্তিক হাইপারটেক্সট সিস্টেমের প্রস্তাব দেওয়ার জন্য একটি মেমো লিখেছিলেন। বার্নার্স-লি 1990 এর শেষদিকে এইচটিএমএল কে নির্দিষ্টভাবে সংজ্ঞায়িত করেছিলেন ব্রাউজার এবং সার্ভার সফ্টওয়্যারটি লিখেছিলেন।
সেই বছর, বার্নারস-লি এবং সিইআরএন ডেটা সিস্টেমের প্রকৌশলী রবার্ট কিলিয়াউ অর্থায়নের জন্য একটি যৌথ অনুরোধে সহযোগিতা করেছিলেন, তবে প্রকল্পটি সিইআরএন দ্বারা আনুষ্ঠানিকভাবে গৃহীত হয়নি। 1990 থেকে তাঁর ব্যক্তিগত নোটে তিনি “হাইপারটেক্সট ব্যবহৃত হয় এমন অনেকগুলি ক্ষেত্রের কয়েকটি” তালিকাভুক্ত করেছিলেন এবং একটি এনসাইক্লোপিডিয়া তৈরি করে রাখেন।

এইচটিএমএলের প্রথম প্রকাশ্যে উপলভ্য বর্ণনাটি ছিল “এইচটিএমএল ট্যাগস” নামে একটি ডকুমেন্ট যা ১৯৯১ সালের শেষদিকে টিম বার্নার্স-লি দ্বারা প্রথম ইন্টারনেটে উল্লিখিত হয়েছিল। এটি HTML এর প্রাথমিক, তুলনামূলক সহজ ডিজাইনের সমন্বয়ে 18 টি উপাদানকে বর্ণনা করে হাইপারলিঙ্ক ট্যাগ ব্যতীত এগুলি এসইএমএমগুইড দ্বারা দৃঢ়ভাবে প্রভাবিত হয়েছিল।
তখনকার সময়ে সিইআরএন-র অভ্যন্তরীণ স্ট্যান্ডার্ড জেনারেলাইজড মার্কআপ ল্যাঙ্গুয়েজ (এসজিএমএল) ভিত্তিক ডকুমেন্টেশন ফর্ম্যাট ছিল। এর মধ্যে এগারটি উপাদান এখনও এইচটিএমএল 4 এ বিদ্যমান রয়েছে।

পরবর্তীতে এস জি এল এর তেমন কোনো উন্নয়ন ঘটেনি বরং এর কাঠামো ব্যবহার করে ধীরে ধীরে এইচটিএমএল আরো শক্তিশালী হতে শুরু করেছিল।
বার্নার্স-লি এইচটিএমএলকে এসজিএমএলের একটি অ্যাপ্লিকেশন বলে মনে করেছিলেন।

যাইহোক, 2000 সালে, এইচটিএমএলও আন্তর্জাতিক মানের হয়ে উঠেছে। এইচটিএমএল 4.01 1999 এর শেষ দিকে প্রকাশিত হয়েছিল, 2001 এর মধ্যে আরও ত্রুটি প্রকাশিত হয়েছিল। 2004 সালে, ওয়েব হাইপারটেক্সট অ্যাপ্লিকেশন প্রযুক্তি ওয়ার্কিং গ্রুপ (WHATWG), এইচটিএমএল 5-তে উন্নীতকরণ করতে আগ্রহী হয়, যা ২০০৮ সালে ডাব্লু 3 সি এর সাথে একটি যৌথ বিতরণযোগ্য হয়ে ওঠে এবং এটি মানসম্মতভাবে প্রকাশিত হয় 28 অক্টোবর 2014 তে।
এখন পর্যন্ত এটি এইচটিএমএল এর সর্বশেষ সংস্করণ এখনকার প্রায় সকল ডিভাইসের সর্বশেষ সংস্করণ এর ব্রাউজার গুলোতে এইচটিএমএল সাপোর্ট করে।

তো আজকে এ পর্যন্তই আশা করছি, আমি আপনাদের এইচটিএমএল সম্পর্কে বোঝাতে পেরেছি।
আসলে এক কথায় এটা হচ্ছে ইন্টারনেটের প্রাণ! এইচটিএমএল দিয়েই ইন্টারনেটের সব কনটেন্ট সাজানো হয়। ওয়েবপেজের back-end এর বিভিন্ন কাজ প্রোগ্রামিং ল্যাঙ্গুয়েজ দিয়ে করা হয় কিন্তু সেই প্রোগ্রামটা কে front-end এ প্রকাশ করার জন্য এইচটিএমএল ব্যবহার করা হয়। যদিও এর সাথে সিএসএস এর সম্পর্ক রয়েছে।

সিএসএস সম্পর্কে আমি পরবর্তীতে টিউটরিয়াল নিয়ে আসব। আর এইচটিএমএল এর কোর্স এটা কিন্তু শেষ না।‌‌‌‌ এইচটিএমএল নিয়ে প্রায় 30-40 টা পোস্ট করব। একদম বেসিক থেকে এডভান্স পর্যন্ত 🙂
যাই হোক পরের পোস্ট থেকে আমি আপনাদের ল্যাংগুয়েজটা শেখাবো। আর আমি w3schools এর পদ্ধতি অনুসারে সকল পোস্ট করব।

তো আজকে এ পর্যন্তই ছিল। পরবর্তী পোস্ট পর্যন্ত ট্রিকসবিএন এর সাথেই থাকুন। সবাইকে অনেক অনেক ধন্যবাদ।

আমার পোস্ট এর মাঝে যদি আপনারা যে কোন ধরনের ভুল খুঁজে পান তাহলে অবশ্যই অবশ্যই কমেন্ট এর মাধ্যমে আমাকে জানাবেন.. অনেক কৃতজ্ঞ থাকব।

Aponex
A man who loves to work with technology & always tries to make others happy by helping them in their needs 💕💕